বিএনপির ক্যাডার আ'লীগ এমপির পিএস

নিজস্ব প্রতিবেদক | প্রকাশিত: ১৪ জানুয়ারী ২০২১ ১২:৩০; আপডেট: ১৪ মে ২০২১ ২১:৫৭

ঢাকা-৫ আসনের আওয়ামী লীগ এমপি কাজী মনিরুল ইসলাম মনুর রাজনৈতিক সচিব (পিএস) পদে নিয়োগ পেয়েছেন স্থানীয় বিএনপি নেতা সরকার বিরোধী আন্দোলনের জ্বালাও পোড়াও মামলার আসামী জিয়া উদ্দিন জিয়া। এ ঘটনায় তোলপাড় এলাকা জুড়ে। আওয়ামী লীগ এমপির পিএস হওয়ার সুবাদে তার প্রভাব বেড়েছে। এনিয়ে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে স্থানীয় দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে। তাই স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা প্রকাশ্যে তার বিরুদ্ধে কথা বলতে আগ্রহী নন।

অনুসন্ধ্যানে জানা যায়, ঢাকা-৫ আসনের আওয়ামী লীগ এমপি কাজী মনিরুল ইসলাম মনুর রাজনৈতিক সচিব (পিএস) জিয়া উদ্দিন জিয়া সর্বপ্রথম রাজনীতি শুরু করেন আ স ম আবদুর রব এর হাত ধরে। পরবর্তীতে তিনি ডেমরা থানা জাসদ এর সাধারণ সম্পাদক হোন, সে সময় তার রাজনৈতিক গুরু ছিল জাসদ(ইনু) ঢাকা মহানগর দক্ষিণের এর সভাপতি শহীদুল ইসলাম। পরবর্তী ২০০১ সালে বিএনপি জামাত জোট সরকার যোগদেন তিনি। তার সাহসিকতার জন্য  বৃহত্তর ডেমরা থানা যুবদলের একজন সক্রিয় রাজপথের নেতা হিসাবে পরিচিতি লাভ করেন।

নজর কাড়েন সে সময় ডেমরা থানা বিএনপি'র সভাপতি নবী উল্লাহ নবীর এবং এক সময় নবীউ্ল্লাহর আস্থাভাজন হয়ে উঠেন,। দীর্ঘ সময় জিয়া উদ্দিন জিয়া বৃহত্তর ডেমরা থানা বি এন পির রাজনীতির সাথে সক্রিয় ভাবে অংশগ্রহন করেন,২০১৮ সালে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময় ঢাকা-০৫ আসনের বিএনপি প্রার্থী নবী উল্লাহ নবীর নির্বাচন পরিচালনা কমিটিতে তিনি যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক এর দায়িত্ব পালন করেন।

ফেসবুকের স্কিনশর্ট প্রমাণসহ আমাদের দিন হাতে পৌছেছে এবং এই প্রতিনিধি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি স্টাটাস দিয়েছে যে, আগামীকাল আসছে, "বিএনপির ক্যাডার আ'লীগ এমপির পিএস", এর পরেই তিনি সব স্টাটাস ডিলেট করে ইংলিশ থেকে বাংলা করেন তার আইডি জিয়া উদ্দিন জিয়া। ( স্কিন শর্ট আমাদের দিনের হাতে সংরক্ষিত আছে) । শুধু তাই  নয় আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর যে কয়টি সরকার বিরোধী আন্দোলন হয়েছে হেফাজতের আন্দোলন, কোটা আন্দোলন, জামাত শিবিরের অবরোধ সহিংসতা এবং সর্বশেষ সড়ক আন্দোলন সব কয়টি সরকার বিরোধী আন্দোলনে জিয়া উদ্দিন জিয়া ধারাবাহিকভাবে ফেসবুকে সরকার বিরোধী সব পোস্ট দিয়ে উস্কানি দিতেন।

তবে সময় পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে নিজেকে পরিবর্তন করে ফেলেন তিনি। এমপি কাজী মনিরুল ইসলাম মনুর রাজনৈতিক সচিব (পিএস) হওয়ার সুবাদে তিনি এখন আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারকদের একজন। স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা জানান, এমপি কাজী মনিরুল ইসলাম মনু একজন ভালো মানুষ। তার নাম ব্যবহার করে জিয়া টেন্ডারবাণিজ্য ডিও লেটারসহ  সবকিছু নিজ হাতে নিয়ন্ত্রণ করছেন। এভাবে হাতিয়ে নিচ্ছেন লাখ লাখ টাকা। স্থানীয় এমপির সঙ্গে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের যোগাযোগের মাধ্যম তিনি। তার অনুমতি ছাড়া এমপির সাক্ষাৎ মিলে না। এ বিষয়ে কেউ প্রতিবাদ করলে এমপির কাছ থেকে ‘মাইনাস ফর্মুলা’র শিকার হতে হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক আওয়ামী লীগ নেতা  জানান,  জিয়া সত্যিই ভাগ্যবান। বিএনপি আমলে আমরা তার হাতে মিথ্যা মামলা, হয়রানি ও নির্যাতনের শিকার হতাম। আর এখন আওয়ামী লীগ সরকার আমলেও তার সুদৃষ্টি ছাড়া কিছুই হয় না। সবকিছুই ‘নিয়তির পরিহাস’ বলে মনে করেন তারা।

এসম্পর্কে জানতে ঢাকা-৫ আসনের আওয়ামী লীগ এমপি কাজী মনিরুল ইসলাম মনুকে একাধিক মোবাইল নাম্বারে যোগাযোগ করলে, তিনি কোন কথা বলতে নারাজ। এবিষয়ে এখন কথা বলতে পারবেন না বলে জানিয়ে দেন।

 



বিষয়:


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top