ঢামেকে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ,সংশ্লিষ্টতা নেই ছাত্রলীগের!

নিজস্ব প্রতিবেদক | প্রকাশিত: ১৭ জানুয়ারী ২০২১ ১১:৩০; আপডেট: ১৭ জানুয়ারী ২০২১ ১২:০৯

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিষদের গত ১৪ জানুয়ারীতে যে দ্বন্দ হয়েছে সেটা তাদের অভ্যন্তরীণ। এখানে সরকার দলীয় ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কোন সংশ্লিষ্টতা নেই বলে জানান একাধিক ইন্টার্ন চিকিৎসক।

মেডিকেল সূত্রে জানা যায়, গত ১৪ জানুয়ারী আনুমানিক রাত ১১ ঘটিকায় শহীদ ডা. ফজলে রাব্বী হলের প্রবেশ পথে ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ডা.শাহরিয়ার খানের উপর অতর্কিত হামলা চালায় ডা.আলী ইমাম শীতল এর নেতৃত্বে তার অনুসারীরা। হামলাকারীরা জিআই পাইপ দিয়ে ডা.শাহরিয়ার খানের মাথায় আঘাত করলে সে হাত দিয়ে মাথা রক্ষা করতে গেলে হাতে থাকা মোবাইল ফোন ভেঙ্গে যায় এবং দুই হাতের আঙ্গুলে মারাত্মক ক্ষতের সৃষ্টি হয় এবং তাদের ধাওয়ায় ড্রেনে পরে গিয়ে ডান হাঁটুতে আঘাত পান। এ সময় আহতের চিৎকার শুনে ক্যান্টিনে বসে থাকা চিকিৎসক-শিক্ষার্থীরা এসে তাকে উদ্ধার করতে আসলে হামলাকারীরা তাদের উপরও চড়াও হয় এবং হামলা চালায়। এসময় উদ্ধারকারী চিকিৎসক-শিক্ষার্থীরা এবং হামলাকারীদের মধ্যে কয়েকজন আহত হয়।

ডা.শীতল হঠাৎ করে কেন এমন হামলা চালালো এ ব্যাপারে আহত ঢামেকহা ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিষদের সাধারণ সম্পাদকের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন,” শীতলের সাথে আমার কোন ব্যক্তিগত শত্রুতা নেই।সম্প্রতি ইন্টার্ন চিকিৎসকদের ডিউটি রোস্টার নিয়ে সে কিছু অনৈতিক সুবিধা চাইলে আমি তা নাকচ করি ফলে সে আমার উপর ক্ষুদ্ধ ছিলো। সে আমাকে দেখে নেওয়ারও হুমকী দিয়েছিল। তবে শীতল দীর্ঘদিন মানসিক রোগের চিকিৎসাধীন থাকায় আমি তার হুমকী সেভাবে গুরুত্ব দেইনি। তবে সে এই সামান্য কারনে আমার মাথায় আঘাত করতে উদ্যত হবে এটা ভাবতে পারিনি।”

ডা.শীতলের মানসিক সুস্থতা নিয়ে তার রুমমেট ডা.তামিমের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন,”শীতল আমার রুমমেট হওয়ায় দীর্ঘদিন ধরে ওকে দেখছি ও এন্টি-সাইকোটিক(মানসিক রোগের) ঔষুধ খেয়ে আসছে।এমনকি গত পরশু রাতেও সে আমার থেকে ভালো ট্রাই-সাইক্লিক এন্টি-ডিপ্রেসেন্ট(মানসিক অবসাদগ্রস্থতার) ঔষধের পরামর্শ চেয়েছিল।”

ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিষদের সাধারণ সম্পাদকের উপর এমন অতর্কিত হামলায় ক্ষুব্ধ সকল ইন্টার্ন চিকিৎসকেরা।
তারা এই হামলায় জড়িতদের সকলের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ এবং এর পিছনে মদদদাতাদের খুঁজে বের করার আহবান জানায়। অন্যথায় তারা যে কোন ধরনের কর্মসূচি গ্রহণ করবে।

সূত্র,দৈনিক আমাদের দিন



বিষয়:


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top